একটি চড় এবং অতঃপর…

তারিখঃ ১8 ডিসেম্বর ২০১৬

ছোট বেলায় আমিও দুষ্টু বালকদের দলেই ছিলাম । ক্লাসে স্যার না থাকলে আমার কাজ ছিল ডায়াছের সামনে গিয়ে এমন কিছু বলা বা করা যাতে সমস্ত ক্লাস হেসে উঠতো, আনন্দিত হতো । ক্লাসে স্যার না থাকলেই বন্ধুরা বলত, রেজা তুই সামনে যা।

ক্লাস সেভেন, আমাদের রনি (Rony Ahmed) তখন ক্লাস ক্যাপ্টেন । ক্যাপ্টেনের পাশের ডেস্কটাই ছিল আমার । সেদিন ক্লাসে স্যার দেরিতে আসায় যথারীতি প্রচণ্ড শব্দ, হৈ চৈ, চিল্লা পাল্লা চলছিল । সুকুমার রায়ের ভাষায় যাকে বলে ‘ চীৎকারে ক্লাস মাথায় উঠিয়া পড়িল ‘ । সাধারনত এসবের মধ্যমনি আমিই থাকতাম । কিন্তু সেদিন আমি কোন একটি বইয়ের মধ্যে ডুবে ছিলাম । আশে পাশে কী চলছিল তার কোন খেয়াল ছিল না ।

” যাহার দুই হাত সমান চলে ” – বাংলা ব্যাকরণে তাকে ” সব্যসাচি ” বলে । আমাদের ফর্ম মাস্টার স্যার ছিলেন সত্যিকারের সব্যসাচি । উনি যখন কাউকে চড় মারতেন তখন ওনার দু হাত সমানে চলত । বাম হাত দিয়ে ডান গালে ও কানে এবং ডান হাত দিয়ে টার্গেটের বাম গাল ও কানে সমানে চড় চলতে থাকত । একটানা দু হাতে ২০/ ৩০/ ৪০ কিংবা ততোধিক চড় দিবার পরে উনি থামতেন । ততক্ষণে টার্গেটের নাকে ও চোখে জল অবশ্যম্ভাবী । কান আর গালের রং পালটাবার কথা না হয় নাই বললাম ।

হঠাৎ কোথা হতে ফর্ম মাস্টার স্যার এসে দু হাতে রনিকে ( ক্যাপ্টেন ) চড় মারতে লাগলেন । তাড়াতাড়ি বলো – “ কে কে দুষ্টুমি করছিল ? “ [ Who are the DCs (disturbing cadets) ] বেচারা রনি চড়ের হাত থেকে বাঁচার জন্য প্রথমেই ‘ রেজা ’ র দিকে অঙ্গুলি নির্দেশ করল । আর যায় কোথায় ; সব্যসাচির আকস্মিক আক্রমনে এই ছোট্ট আমি দিশেহারা হয়ে গেলাম । চোখে পানি এসে গেলো । ব্যথায় যতটুকু না কাঁদলাম তার চেয়ে বেশি মন খারাপ হল এই অভিমানে যে – আমি সবাইকে হাসাই, আনন্দ দেই অথচ আমাকেই সবাই বিপদে ফেললো । অন্যদিকে আবার আজকে আমি দুষ্টুমিই করি নাই ।

আহা ! ছোট বেলার অভিমান, বড় অভিমান, বড় অবুঝ , বড় বাধ ভাঙ্গা ।
ঠিক করলাম এখন থেকে দুষ্টুমি কমিয়ে একটু পড়াশোনায় মনযোগী হবো । বার্ষিক পরীক্ষায় তৃতীয় হয়ে মনে হলে আমিও তো পারি । এরপরের পড়াশোনার গল্পটা গৌরবের ছিল বৈকি ।

[ যে ঘটনাটা বলে গল্পটা শেষ করবো, সেটা হল যতদিন স্যার ছিলেন এরপর থেকে প্রতিটি পরীক্ষায় স্যার আমাকে ওনার সাবজেক্টে Highest Marks দিতেন । পরীক্ষায় ভালো করলেও, খারাপ করলেও। প্রকৃতির (Nature) প্রকৃতি (Mystery) বোঝা সত্যি অসাধ্য । ]

১৪.১২.২০১৬
কটকি পাড়া , রংপুর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *