শিরোনামঃ পুতুল নাচের ইতিকথা – মানিক বন্দ্যোপাধ্যায়

ভয়ঙ্কর সুন্দর একটি বই । প্রতিটি মানুষের মনের মধ্যে আজন্ম লালিত স্বপ্ন থাকে । বড় কিছু, অনেক বড় কিছু সাধ থাকে । কিন্তু সেই সাধ অপূর্ণই থেকে যায় । জীবনের চলার গতি প্রবাহে সেই সাধ অধরাই থাকে ।

গল্পের নায়ক শশী ( ডাক্তার বাবু ) কে ঘিরে যে ঘটনা প্রবাহ তা চমকপ্রদ । তার অতৃপ্ত প্রেম ( কুসুম ), মতির প্রতি স্নেহ, সেনদিদি, যাদবের এবং তার স্ত্রীর প্রতি মায়া । যাদব আর তার স্ত্রীর নাটকীয় জীবনবসান, যাদবের অপ্রত্যাশিত উইল। কী তার গল্প বলার বর্ণনা ভঙ্গি, আহা কী তার স্বাদ ।

কুমুদের যথেচ্ছা জীবন যাপনের মধ্যদিয়ে মানুষের মনের আরেকটা দরজা কি সুন্দর ভাবেই না বর্ণিত হয়েছে । আহা, বিন্দুর জীবন কী কম চমকপ্রদ ।

পিতার ( গোপাল ) শশীর প্রতি বাৎসল্য, ভালবাসা কি সুন্দর ভাবেই না আঁকা হয়েছে । সন্তান বড় হলেও, পিতার যে বর্ণনাতিত স্নেহের, ভালবাসার আকুতি, সেটাও অনুভব করবার বিষয় বটে । একবারে শেষে গোপালের অন্তর্ধান এবং শশীর অতৃপ্ত স্বপ্নের আপাত সমাধি কি নাড়াটাই না দিল পাঠককে ।
[ যারা বই ভালবাসেন অথচ এখনও বইটি পড়েননি তারা …। ]

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *